সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সফর, ১৪৪৪ হিজরি.
সাপ্তাহিক জন্মভূমি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

ইতালির গণমাধ্যমে বিএনপি নেতার সাক্ষাৎকার, বিপাকে বাংলাদেশিরা

১৪-আগ-২০২০ | jonmobhumi | 488 views
collected

Spread the love

ইতালিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য ইতালি প্রবাসী বিএনপিপন্থী নেতা শাহ তাইফুর রহমান ছোটনকে দায়ি করছেন প্রবাসীরা। প্রবাসী বাংলাদেশিরা বলছেন, ইতালিতে বাংলাদেশিদের সাময়িক সময়ের জন্য প্রবেশ নিষিদ্ধ হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে শাহ তাইফুর রহমান ছোটন। যিনি বিএনপির ইতালি শাখার সাবেক সভাপতি। বাংলাদেশ সরকারকে দুর্নীতিবাজ প্রমাণ করার জন্য ইতালির সংবাদ মাধ্যমকে একটি সাক্ষাৎকারও দিয়েছেন তিনি। 

সাক্ষাৎকারে বিএনপির এই নেতা বলেছেন, বাংলাদেশে থেকে যে সব বাংলাদেশী ইতালি আসছে তাদের সবার কাছে ভুয়া করোনা রিপোর্ট এবং এরকম প্রায় দশ হাজার লোক ইতালি আসার পথে আছে। তার এই সাক্ষাৎকারের পর থেকেই নড়েচড়ে বসে ইতালি সরকার। মূলত এই বিএনপি নেতার গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারের পর থেকেই ইতালি সরকার প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেশটিতে প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। 

প্রবাসীরা মনে করছেন, বিএনপির পলাতক নেতা তারেক জিয়ার নির্দেশে ইতালির বিএনপির এই নেতা বাংলাদেশ সরকারকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিতর্কিত করার জন্য এ ধরনের মিথ্যা প্রপাগাণ্ডা ছড়াচ্ছে। অথচ তার সাক্ষাৎকার দেয়ার আগ পর্যন্ত ইতালির সরকার বাংলাদেশিদের কাছে কোন প্রকার করোনা সনদই চায়নি।

সাক্ষাৎকারে যা বলছেন  বিএনপিপন্থী এই নেতা:

ইতালি প্রবাসী বিএনপির এই নেতা ইতালি সংবাদমাধ্যমে যা বলেছিলেন তার অনুবাদ করে তুলে ধরা হলো:

ইতালির গণমাধ্যমকে শাহ তাইফুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে প্রায় দশ হাজার প্রবাসী রয়েছে যারা ইতালি আসতে চায় কারণ, আমরা ধারণা করি দশ লাখের বেশী বাংলাদেশী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং সেখানে কোন প্রকার চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই। একটা দোজখে পরিণত। সেই দোজখ থেকে দশ হাজার প্রবাসী পালিয়ে ইতালি এসে বাঁচতে চায়। তাই ইতালির উচিত তাদেরকে গ্রহণ করা। তা না করা হলে তারা দোজখে ছটফট করে মারা যাবে। এটা ঠিক হবে না। ইতালির উচিত এদের আসতে দেয়া যেভাবে ২৮০ জনকে হিলটন হোটেলে রেখেছে সেভাবে রাখা।

দেড় দুই লাখ টাকা খরচ করে যারা আসছে তারা ১৪দিন কোয়ারেন্টিনে এ থাকার টাকা হোটেল বুকিং দিয়েও আসতে পারবে। তাছাড়া যেহেতু সরকার টাকা দিচ্ছে কভিড এর সেই টাকা দিয়েও কোয়রেন্টিনে রাখা যায়। কিন্তু তাদের আসতে দিতে হবে দোজখ থেকে এটা সরকারের কাছে বাংলাদেশিদের আপিল।’

এদিকে প্রবাসীরা অভিযোগ করেছেন, বিএনপির এই নেতা বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ সরকারকে ব্যর্থ প্রমাণ করতে গিয়ে ইতালিতে বসবাসকারী প্রায় দুই লক্ষ বাংলাদেশীর ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার মুখে ফেলেছেন। ইতালিতে বাংলাদেশীদের সাময়িক সময়ের জন্য প্রবেশ নিষিদ্ধ হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে ইতালি প্রবাসী বিএনপি পন্থী নেতা শাহ তাইফুর রহমান ছোটন (যিনি বিএনপির ইতালি শাখার সাবেক সভাপতি)।

ইতালির লেগা নর্দ দলের নেতা মাতেও সালভিনি তার ফেসবুকে লেখেন,পাগল করা জিনিস।

ইতালি আওয়ামী লীগের সভাপতি ইদ্রিস ফরাজী ও সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল বলেন, ইতালি বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহ তাইফুর রহমান ছোটনের স্থানীয় পত্রিকায় দেয়া সাক্ষাৎকার সম্পূর্ণ দেশ বিরোধী। তার এ বক্তব্যের কারনেই ইতালিতে দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সাথে বসবাস করা বাংলাদেশিদের আজ অন্য নজরে দেখা হচ্ছে। তারা বিএনপি নেতার এ ধরনের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানান। 

এ বিষয়ে জানতে ইতালি বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহ তাইফুর রহমান ছোটনকে কয়েকবার ফোন দিলে তিনি ফোন কেঁটে দেন। এদিকে শাহ তাইফুরের বক্তব্য দেশে ইতালিতে সামাজিক মাধ্যমে চলছে সমালোচনার ঝড়। ইতালি প্রবাসী বাংলাদেশিরা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। ইতালি বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহ তাইফুর রহমান ছোটনের এ ধরনের বক্তব্যের প্রতিবাদ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখালেখি করছেন।

সার্চ/অনুসন্ধান করুন