সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সফর, ১৪৪৪ হিজরি.
সাপ্তাহিক জন্মভূমি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুর ফের রিমান্ডে

০৮-অক্টো-২০২০ | jonmobhumi | 402 views

Spread the love

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামি ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানকে আবারো রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। এবার ছাত্রাবাস থেকে অস্ত্র উদ্ধারের মামলায় তাকে তিন দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট মহানগর বিচারিক হাকিম ২য় আদালতের বিচারক মো: সাইফুর রহমান এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সিলেট মহানগর পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) অমূল্য ভূষণ চৌধুরী জানিয়েছেন, অস্ত্র মামলায় সাইফুরের পাঁচদিনের রিমান্ড চেয়ে সিলেট মহানগর বিচারিক হাকিম ২য় আদালতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহপরান থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য। শুনানি শেষে আদালতের বিচাররক সাইফুরের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর গণধর্ষণ মামলায় সাইফুরকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। রিমান্ড শেষে গত ২ অক্টোবর তিনি ধর্ষণের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে তুলে নিয়ে এক গৃহবধূকে স্বামীর সামনে ধর্ষণ করেন সাইফুর রহমানের নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী। ওই রাতে স্বামীর সাথে কলেজ ক্যাম্পাসে ঘুরতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই গৃহবধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসের সামনে প্রাইভেটকারের মধ্যেই পালাক্রমে ধর্ষণ করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুইজন।

খবর পেয়ে শাহপরান থানা পুলিশ কলেজ ছাত্রাবাস থেকে গণধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে। এরপর রাতেই এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানের দখলে থাকা কক্ষে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় ওই কক্ষ থেকে একটি পাইপগান, চারটি রামদা, দুটি চাপাতি ও একটি ছোরা উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পরদিন ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানকে আসামি করে মামলা করে পুলিশ।

এদিকে ধর্ষণের ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় আরেকটি মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় কর্মীসহ অজ্ঞাত আরো তিনজনকে আসামি করা হয়।

সার্চ/অনুসন্ধান করুন