সোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সফর, ১৪৪৪ হিজরি.
সাপ্তাহিক জন্মভূমি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

শাল্লায় হামলার শিকার গ্রাম পরিদর্শনে কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রতিনিধি দল

২০-মার্চ-২০২১ | jonmobhumi | 329 views

Spread the love

সুনামগঞ্জের শাল্লায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও ভাংচুরের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছে কেন্দ্রীয় বিএনপি’র একটি প্রতিনিধি দল। এ সময় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর সদস্যদের হাতে দলের পক্ষে আর্থিক সহায়তা তুলে দেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

কেন্দ্রীয় বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী ও কেন্দ্রীয় মহিলা ও শিশু অধিকার কমিটির মহাসচিব অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরীর নেতৃত্বে দলটি শনিবার দুপুরে নোয়াগাঁও গ্রামের ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িতে যায় এবং তাদের সাথে কথা বলে।

পরিদর্শনকালে গ্রামবাসীর উদ্দেশে নিতাই রায় বলেন, ‘বিনাভোটের সরকারের অধীনে কোনো ধর্মের লোকই আজ নিরাপদ নয়। শাল্লার ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তারা আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। এই ঘটনার জন্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়েক তারেক রহমানসহ আমরা গভীরভাবে মর্মাহত। আমাদের নেতা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশে আমরা আপনাদের পাশে এসেছি। আমরা আপনাদের পাশে থাকবো। আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তসাপেক্ষে আসল দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ঘটনার সাথে জড়িতদের আধিঅন্ত মিডিয়ায় প্রকাশ হয়েছে। এই ঘটনার সাথে সরকারদলীয় লোকজন জড়িত।

তিনি আরো বলেন, ‘এই সরকার যখনই ক্ষমতায় এসেছে তখনই সংখ্যালঘুদের উপর হামলা হয়েছে। এই সরকারের আমলেই রামুতে হামলা হয়েছে। এ বার সুনামগঞ্জে একই ভাবে হামলা হয়েছে। এই সরকারের আমলে মানুষের বাড়ি-ঘর, জমিজমা দখল করা হয়েছে। আর এই ঘটনাগুলো এ জন্যই হচ্ছে কারণ এই সরকার প্রকৃতভাবে জনগণের সরকার না, এই সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি, এরা রাতের বেলা অর্ধেক ভোট দিয়ে দিনের বেলা নির্বাচিত হয়। আওয়ামী লীগ সরকার গণবিছিন্ন সরকার এবং গণবিছিন্ন সরকার সব সময় দুর্বল থাকে। তাই দুর্বল সরকারকে সবল ভাবে টিকে থাকতে হলে তাকে বল প্রয়োগ করতে হয় রাষ্ট্রযন্ত্রের মাধ্যমে। তাই বল প্রয়োগ করতে গিয়ে আরো বেশি গণবিছিন্ন হয়ে পড়েছে। এই কারণেই এই ঘটনাগুলো ঘটছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাই।’

অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী বলেন, ‘আমরা মর্মাহত, বাকরুদ্ধ এ ধরনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। আর যাতে কোনো নিরপরাধ মানুষ হয়রানির শিকার না হয় সে বিষয়ে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’ কোনো নিরপরাধ মানুষ যেন হয়রানীর শিকার না হয় সে জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘স্থানীয় যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের মতো জঘন্য তাণ্ডব হয়েছে বলে ইতোমধ্যে গণমাধ্যমের খবরে প্রকাশিত হয়েছে। আমরা মনে করি এ সরকার দেশের জনগণের ব্যাপারে দায়িত্বশীল নয়। সরকারদলীয় নেতাকর্মীরাই হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর বার বার হামলা করছে।’

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে দলের পক্ষ থেকে নগদ এক লাখ টাকা ও নারী শিশু অধিকার ফোরামের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা অনুদান হিসেবে নির্যাতনের শিকার পরিবারগুলোর মাঝে বিতরণ করে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল।

এসময় সাথে ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন মিলন, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঈন উদ্দিন চৌধুরী মাসুক, জেলা বিএনপির উপদেষ্টা তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, শাল্লা উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গনেন্দ্র চন্দ্র সরকার, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব সোবহানী চৌধুরী, জেলা যুবদল সভাপতি আবুল মনসুর শওকত, জেলা ছাত্রদল সভাপতি রায়হান উদ্দিনসহ স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সার্চ/অনুসন্ধান করুন