বুধবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি.
সাপ্তাহিক জন্মভূমি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

সারা বিশ্বে একইসাথে রোজা শুরু হয় না যে কারণে

১৪-এপ্রি-২০২১ | jonmobhumi | 342 views

Spread the love

আমরা সবাই জানি, পৃথিবীর সব দেশে একসাথে ও একই মুহূর্তে রোজা শুরু হয় না। অর্থাৎ সারা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ একইসাথে প্রথম রোজা রাখে না এবং পবিত্র ঈদও একই দিনে উদযাপন করে না। যেমন আমাদের দেশসহ এই উপমহাদেশে, সেইসাথে আরো অনেক দেশে বিশেষত উপসাগরীয় ভূখণ্ড এবং পশ্চিমা বিশ্বের চেয়ে সাধারণত এক দিন অথবা কখনো দু’দিন পরে রোজা শুরু হয় এবং ঈদ উদযাপিত হয়। অথচ আমাদের অনেকের কামনা হলো, গোটা মুসলিম উম্মাহ যদি একই দিনে ঈদ উদযাপন করত তাহলে কতই না ভালো হতো। কিন্তু বাস্তবে তা কখনোই সম্ভব নয়।

একই দিনে, একই মুহূর্তে এবং একইসাথে রোজা শুরু করা সম্ভব না হওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ হিজরি ক্যালেন্ডার। এটি চাঁদ ওঠার হওয়ার সাথে সম্পৃক্ত। হিজরি ক্যালেন্ডারে দিন শুরু হয় চাঁদ উদিত হওয়ার মাধ্যমে আর ভূগোল ও মৌসুমের পরিবর্তনের কারণে বিভিন্ন দেশে আলাদা আলাদা সময়ে চাঁদ ওঠে। আর চাঁদ ওঠার এ পার্থক্য কোনো কোনো দেশে অর্ধ দিনেরও বেশি হয়ে থাকে।

এজন্য পুরো বিশ্বে একইসাথে রোজা শুরু করা এবং কোনো ইসলামি উৎসব পালন করা সম্ভব হয় না। তবে আধুনিক যুগের গবেষকদের কেউ কেউ দাবি করেন, পৃথিবী বর্তমানে একটি গ্লোবাল ভিলেজে রূপান্তরিত হয়েছে এবং অনলাইন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো পৃথিবীকে এক হাতের তালুতে নিয়ে এসেছে, এখন অন্তত এ সনাতন রীতি ও আধুনিক বিজ্ঞানের সমন্বয়ে একটি যুগপোযোগী সিদ্ধান্ত নেয়া দরকার, যাতে বিশ্বের সব মুসলিম একইসাথে রোজা শুরু করতে এবং ঈদ উদযাপন করতে পারে।

কিন্তু তাদের এ দাবির বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। কারণ, পৃথিবী হাতের মুঠোয় চলে এলেও চাঁদ ওঠার সময়ের পার্থক্য কোনোভাবেই দূর করা যাবে না। সুতরাং তাদের জটিল ও স্পর্শকাতর এ বক্তব্যটিও বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। বরং যখন যেখানে চাঁদ উঠবে সেখানে তখনই হিজরি দিন গণনা শুরু হবে।

আল্লাহ আামদের সঠিক বুঝ দান করেন। আমিন।

সার্চ/অনুসন্ধান করুন